top
top

সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নিয়ে দ্বন্ধের অবসান দক্ষিন সুনামগঞ্জের পরিবর্তে সদরে

সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান নিয়ে দ্বন্ধের অবসান দক্ষিন সুনামগঞ্জের পরিবর্তে সদরে
Spread the love

বিশেষ প্রতিনিধি:

সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের স্থান নিয়ে দ্বন্ধের অবসান ঘটিয়েছে সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবন্দরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজধানী ঢাকার ধানমন্ডি জিনজিয়ান রেস্টুরেন্টে জেলা আওয়ামীলীগের জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

একনেকে পাস হওয়ায় সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থান সংস্ক্রান্ত ইস্যু নিয়ে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে জেলা আওয়ামী লীগের সংগ্রামী সভাপতি ও সাবেক এমপি আলহাজ¦ মতিউর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমনের সঞ্চালনায় সভায় সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক,সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, সংরক্ষিত আসনের এমপি অ্যাডভোকেট শামীমা শাহরিয়ার, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ¦ নুরুল হুদা মুকুটসহ শীর্ষ নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

 

সভায় নেতৃবৃন্দ ঐক্যমত পোষণ করে বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নাম হবে সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন হবে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার বদলে সদর উপজেলার সুবিধাজনক স্থানে, সে ক্ষেত্রে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের আহসান মারা সেতু এলাকার পূর্বপাশের দেখার হাওর পাড়ে সরকারি খাস ভূমিতে। নেতৃবৃন্দরা আরও বলেন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে বিতর্ক দেখা দেয়ায় এবং জায়গা অধিগ্রহণের আগেই দুর্নীতির অভিযোগ উঠায় সরকারি খাস জমিতে স্থাপন হলে সরকারে অনেক টাকা সাশ্রয় হবে।

 

জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মুহিবুর রহমান মানিক বলেন, জরুরি সভায় আহসান মারা সেতু এলাকার দেখার হাওর পাড়ের পূর্বপাশে সরকারি খাস জমিতে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনে নেতৃবৃন্দরা ঐক্যমতে পৌঁছান। সেখানে অনেক জায়গা আছে এবং সরকারি জমিতে স্থাপন হলে সরকারের অনেক টাকা বেঁচে যাবে, জায়গা অধিগ্রহণে আর কোন বিতর্ক, অনিয়ম থাকবে না। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ¦ মতিউর রহমান বলেন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জের বদলে সদরে বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের জন্য আগে সংশোধনী আনতে হবে। আর বিষয়টি উত্তাপন করবেন, সুনামগঞ্জ-৫ আসনের এমপি মুহিবুর রহমান মানিক। জরুরি বৈঠকে কমিটির অধিকাংশ নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। সভায় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান টেলিফোনে জরুরি সভায় যোগ দেন। অসুস্থার জন্য এমপি জয়া সেন গুপ্তা সভায় উপস্থিত হতে পারেননি।